মেয়েকে মহর দিয়ে নিয়ে আসতে হবে এটা আল্লাহর বিধান

প্রকাশিত: ১:৪৯ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০১৯

মেয়েকে মহর দিয়ে নিয়ে আসতে হবে এটা আল্লাহর বিধান

যৌতুক প্রথাঃ
যৌতুককে এখন আর যৌতুক বলেনা, বলে ডিমান্ড, খুশি করে যা দিবে। অনেকে মেয়ের বাবার কাছে বলে খুশি করে যা দিবেন তাই।
.
মেয়েকে মহর দিয়ে নিয়ে আসতে হবে এটা আল্লাহর বিধান। আমরা করে ফেলছি উলটাটা মেয়ের বাপের থেকে যৌতুক নিয়ে বিয়ে করে আনি।
.
মহান আল্লাহ পবিত্র কোর’আনে ইরশাদ করেনঃ
“আর তোমাদের স্ত্রীদেরকে তাদের দেনমহর খুশি মনে প্রদান করবে” [সূরা নিসা: ০৪]
.
মেয়ের বাবাকে বলতেছি:- আচ্ছা ভাবে দেখেন ত যেই ছেলে বলে খুশি করে যা দিবেন তাই, একটা মটরসাইকেল দিলেই হবে বা একটা বাড়ি করে দিলেই হবে যেই ছেলে অর্থ সম্পদের লোভ করে ঐ ছেলে আপনার মেয়েকে কতটা ভালোবাসতে পারবে? আপনার মেয়েকে কতটা ভালো রাখবে একটু নিজেই ভাবে দেখুন ত। খবরে, পত্রিকায় দেখুন কত মেয়ে বিয়ের পর নির্যাতনের শিকার হচ্ছে, মেরে ফেলাও হচ্ছে নির্মমভাবে। আপনার মেয়ের এই নির্যাতনের কারন আপনি নিজেই। মেয়েকে পর্দায় রাখুন, দ্বীনদার বানান আপনি ত জান্নাতি হবেন, সাথে আপনাকে আর পাত্র খুজতে হবেনা। পাত্রই খুজে নিবে আল্লাহর কসম। তখন আপনাকে বলবে কতটাকা লাগে নেন তাও ঐ মেয়েকে চাই। যেই ছেলে বা তার পরিবার আপনার কাছে অর্থ সম্পদ দাবি করে ঐ পরিবারে আপনার কলিজার টুকরা মেয়েটাকে পাঠানোর আগে শতবার ভাবে দেখুন।
দ্বীনদার ছেলে দেখে আপনার মেয়েকে বিয়ে দিন। আপনি সন্মান পাবেন আর আপনার মেয়েটাও অনেক সুখে থাকবে।
.
ছেলে ও তার পরিবারের উদ্দেশ্যেঃ
যারা যৌতুক দাবি করেন বা খুশি করে চায়ে নেন এর প্রত্যেকটা টাকার, সম্পদের, খুশি করে চায়ে নেওয়া শশুরের দেয়া মটরসাইকেলের কড়ায় গন্ডায় হিসাব আপনাকে দিতে হবে আল্লাহর কাছে।
.
মহান আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোর’আনে বলেনঃ
“আর তোমরা অন্যায়ভাবে পরস্পরের মাল গ্রাস করো না।” [সুরা বাকারা: ১৮৮]
.
মেয়ের বাপ কষ্ট করে এতদিন মেয়েকে লালন পালন করছে আপনি যায়ে খুশি হয়ে আপনার শশুরকে কিছু গিফট দিন। খুশি হবে অনেক। শশুরের যৌতুকের টাকায় চাউল কিনে ভাত খেলে ইবাদত কবুল হবেনা। যারা নিছেন তওবা করে তা ফেরত দিয়ে দেন। আপনার চারদিকে একটু খেয়াল করে দেখুন যারা যৌতুক নিছে তারা কেউ লাভবান হয়নাই। আমার দেখা কয়েকজনকে দেখেছি তারা নিস্বহ হয়ে গেছে।
.
মহর আপনার সামর্থ অনুযায়ী দিয়ে মেয়েকে ঘরে আনুন।
অবশ্যই দ্বীনদার মেয়ে দেখে বিয়ে করুন। দ্বীনদার মেয়ে ছাড়া আপনি কখনো খুশি থাকতে পারবেন না। আপনার টাকা থাকবে বাড়ি থাকবে গাড়ি থাকবে, এসির মদ্ধেও আপনাক গরম লাগবে শান্তি থাকবেনা যদি দীনদ্বার মেয়ে বিয়ে না করেন।
.
আল্লাহর রাসূল (সাঃ) বলেছেন,
‘সম্পূর্ণ পৃথিবীটাই হচ্ছে সম্পদ!আর পৃথিবীর সবচেয়ে
উত্তম সম্পদ হচ্ছে সৎ চরিত্রবান(নেককার) স্ত্রী!’
.
[-মিশকাতঃ৩০৮৩,সুনানে নাসায়ি :৩২৩২]
.
আল্লাহ বুঝতে সাহায্য করুক।