মোদীকে খুশি করতে বাবরি মসজিদের স্থানে মন্দির স্থাপনের রায় : আল্লামা শফী

প্রকাশিত: ১১:৩০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১০, ২০১৯

মোদীকে খুশি করতে বাবরি মসজিদের স্থানে মন্দির স্থাপনের রায় : আল্লামা শফী

ভারতের বহু বিতর্কিত বাবরি মসজিদ মামলা বা অযোধ্যা মামলা নিয়ে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট যে রায় দিয়েছে তা চরম পক্ষপাতমূলক। মূলত ক্ষমতাসীন হিন্দুত্ববাদী মোদী সরকারকে খুশি করতে এ রায় প্রদান করেছে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট। মুসলিম বিশ্ব এ রায় ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে।

রোববার রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ এর আমীর, দারুল উলূম হাটহাজারীর মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফী বাবরি মসজিদের বিতর্কতি রায় প্রসঙ্গে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ১৫২৮ সালে মোঘল সম্রাট বাবরের সেনাপতি মীর বাকি কর্তৃক তৈরি করা হয় বাবরি মসজিদ । উক্ত স্থানে কথিত ও কল্পিত রাম মন্দির থাকার অজুহাতে ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর উগ্রবাদী হিন্দুরা বাবরি মসজিদ শহীদ করে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি করে শতশত মুসলমানকে শহীদ করা হয়। মুসলিম বিশ্ব সে ক্ষত এখনো ভুলেনি।

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের প্রচার সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ আনাস মাদানীর পাঠানো এ বিবৃতিতে হেফাজত আমীর আরো বলেন, বাবরি মসজিদের বিতর্কিত মামলার পক্ষপাতমূলক রায় এমন সময় দেয়া হলো যখন ভারতের মুসলিম জনগোষ্ঠি হিন্দুদের হাতে চরমভাবে নির্যাতিত হচ্ছে। গো মাংস ভক্ষণ ও জয়শ্রীরাম না বলার কথিত অপরাধে পিটিয়ে হত্যা করা হচ্ছে। বাড়িঘরে অগ্নি সংযোগ করা হচ্ছে। আমি মনে করি, এ রায়ে হিন্দুদের খুশি করা হয়েছে। এর মাধ্যমে কট্টর হিন্দুদের উগ্রতা আরো বেড়ে যাবে।

আল্লামা আহমদ শফী আরো বলেন, প্রত্মতত্ত্ববিদদের বহুবার অনুসন্ধানের পরও সেখানে কোন মন্দিরের অস্তত্বি খুঁজে পাওয়া যায়নি। এরপরও বাবরি মসজিদের স্থানে রাম মন্দির স্থাপনের অযৌক্তিক রায় দেয়া হয়েছে। আমাদের আশংকা এতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির চরম অবনতি হবে। এহেন মুহূর্তে মুসলিম বিশ্বের বাবরি মসজিদ ইস্যুতে শক্তিশালী অবস্থান তৈরি করা এবং ভারতীয় মুসলিমদের পাশে দাঁড়ানো উচিৎ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ