রোগীর ব্যক্তিগত ডাক্তারি প্রেসক্রিপশনের ছবি তোলা ও দেখা মানবাধিকারের লঙ্ঘন।

প্রকাশিত: ৩:০৬ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৯

রোগীর ব্যক্তিগত ডাক্তারি প্রেসক্রিপশনের ছবি তোলা ও দেখা মানবাধিকারের লঙ্ঘন।

হ্যালো বাংলাদেশ নিউজঃরোগীর ব্যক্তিগত ডাক্তারি প্রেসক্রিপশনের ছবি তোলা ও দেখা মানবাধিকারের লঙ্ঘন। এতে রোগীর গোপনীয়তা নষ্ট হয়।ডাক্তারের কাছে মানুষ যায় তার যন্ত্রণা নিয়ে। এ সময় বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানি কিংবা জরিপকারী সংস্থার প্রতিনিধিরা রোগীর প্রেসক্রিপশনের ছবি তুলতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। যা রোগীর জন্য বিরক্তিকর এবং ব্যক্তিগত গোপনীয়তার লঙ্ঘন।

এ বিষয়ে সচেতনতা তৈরিতে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন ইপিজেড থানা শাখার সভাপতি আবু তাহেরের সভাপতিত্বে মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের ডেপুটি গভর্নর আমিনুল হক বাবু।

সংগঠনের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক খান মোহাম্মদ সাইফুলের সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন মানবাধিকার কমিশন ইপিজেড থানা শাখার সহ-সভাপতি শারমিন ফারুক সুলতানা, লিগেল অ্যাইড কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট শামীমা হক বিথি, নগর কমিটির সদস্য শেখ আলাউদ্দীন ফারুক প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিরা মানবাধিকার কর্মীদের সঙ্গে প্রেসক্রিপশন দেখার বিষয় নিয়ে একমত পোষণ করেন। তারা বলেন, তাদের অনেকে রোগীর ব্যক্তিগত প্রেসক্রিপশন দেখতে বা ছবি তুলতে আগ্রহী নন। কোম্পানির পলিসির কারণে অনেকটা বাধ্য হয়েই তারা এসব কাজ করেন।

এসব কার্যক্রম থামাতে তারা ওষুধ কোম্পানির ম্যানেজমেন্ট পর্যায়ের লোকদের সঙ্গে প্রশাসনের সহায়তায় মতবিনিময় সভা আয়োজনের পরামর্শ দেন। যাতে কোম্পানিগুলো তাদের পলিসিতে পরিবর্তন নিয়ে আসে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ