এবার তবে ফেরা হোক নীড়ে

প্রকাশিত: ৯:০৯ অপরাহ্ণ, মে ১৫, ২০২০

এবার তবে ফেরা হোক নীড়ে

তোফায়েল আহমদঃ

আলহামদুলিল্লাহ সুমহান রাব্বুল আলামীন আমাকে “বেলা ফুরাবার আগে” বইটি পড়ার তাওফিক দিয়েছেন। সত্যিই তো বেলা ফুরাবার আগে যেন আমরা নীড়ে ফিরতে পারি।
বইটি যতই পড়ি ততই যেন আল্লাহ ভীতি ও আল্লাহর সান্নিধ্য পেতে মন উতলা হয়ে আপ্লুত হই। মনে হয় কেউ যেন আমাকেই উদ্দেশ্য করে এসব লিখেছেন, চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছেন নিত্যদিনের অনিয়ম আর পাপাচার গুলো। মনে হয় কেউ যেন আহ্বান করছে নীড়ে ফিরিবার তরে।

আজ আমরা সভ্যতার চরম পর্যায়ে, কিন্তু আমাদের উগ্র সংস্কৃতি এবং উগ্র মনোভাব মধ্যযুগীয় জাহেলিয়াতকেও হার মানায়।আমরা কিভাবে গুনে ধরা এই কর্পোরেট দুনিয়ার অসংগতি গুলো স্ব-গর্বে করে থাকি তা খুব তীক্ষ্ণ ভাবে এই বইয়ে তুলে ধরেছেন প্রিয় লেখক।

এই বইয়ে শুধু যে পাপ,পাপের কারণ-ধরণ বর্ণনা আছে তা নয়৷ লেখক তার বিশাল জ্ঞানের পরিসর দিয়ে খুব সাবলীল ভাষায় বাতলে দিয়েছেন সমাধানের পথ। সুন্দরভাবে পাঠকদের দেখিয়ে দিয়েছেন ইহদিনাস সিরাতাল মুসতাকিমের পথ, যে পথের চূড়ান্ত পর্যায় কাংখিত জান্নাত।
কত সুস্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দিয়েছেন কিভাবে মস্তক অবনত করতে হয়। জানিয়ে দিয়েছেন কিভাবে নিজের পাপের ক্ষমা চাইতে হয়,কার কাছে ক্ষমা চাইতে হয়। এক অবিনশ্বর প্রজ্ঞাময় মহান আল্লাহর প্রতি অবিচল আস্থা ও বিশ্বাসের জায়গা তৈরি করতে হয় কিভাবে তা শিখিয়ে দিয়েছেন।

“বেলা ফুরাবার আগে” একটি গল্পের বই তবে এটাতে স্থান হয়নি কোনো বস্তা পঁচা গল্পের, স্থান পেয়েছে আল্লাহর নেক বান্দা ও নবীদের তাকওয়ার অনিন্দ্য সুন্দর ত্যাগের গল্প। স্থান হয়েছে ভগ্নহৃদয়কে প্রশান্তির বারিধারায় ফিরিয়ে আনার গল্প। অসংগতি থেকে ফিরে আসার জন্য রয়েছে দারুন মোটিভেশন।

এ বইটি যার মেধা মননের বহিঃপ্রকাশ এবং যার অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল, যাদের হাত ধরে বইটি আমি অধম পর্যন্ত এসে পৌছেছে সেই মহান ব্যাক্তিদের দেওয়ার মতো আমি অধমের কাছে কিছুই নেই।
শুধু দোয়া করি মহান রবের কাছে যেন তাদের উত্তম জাযা দান করেন। নিশ্চয়ই আমার রব দাতা হিসেবে কতইনা উত্তম ।

লেখকঃ শিক্ষার্থী ও সমাজকর্মী।