করোনা শেখায় একত্ববাদ ও ধার্মিকতা

প্রকাশিত: ২:০৫ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১৫, ২০২০

করোনা শেখায় একত্ববাদ ও ধার্মিকতা

আব্দুল কাদির আল মাহদি:

করোনা ইশারা দিয়ে একত্ববাদের শিক্ষা দিচ্ছে; করোনা হচ্ছে সর্বশক্তিমান আল্লাহ তা’আলার হুকুমের তাবেদার।

ওয়ার্ল্ড হেলথ অরগানাইজেশন (WHO) এ কথা দৃঢ়তার সাথে বলে যাচ্ছে, করোনা ভাইরাসটি এফেক্ট করলেই তিনি করোনা ভিকটিম বা রোগী নাও হতে পারেন। অর্থাৎ ভাইরাস তাকে ক্ষতি নাও পৌঁছাতে পারে। এরকম কেইস প্রতিনিয়ত তাদের কাছে আসছে। কিন্তু ভাইরাস বাহক দ্বারা তার আশপাশের লোক ক্ষতির সম্মুখিন হয়ে যেতে পারে।

কাজেই বুঝা গেলো, করোনাভাইরাসও হিডেন কারও হুকুমের তাবেদার। ক্ষতি পৌঁছানোর তার নিজস্ব কোন ক্ষমতা নেই, নেই তার নিজস্ব শক্তি। আর সেই ক্ষতি সাধন করার ক্ষমতা থাকা না থাকার লুকায়িত নামই হচ্ছে আল্লাহ তা’আলার হুকুম বা নির্দেশ। হ্যাঁ, সেই নির্দেশ আসলে সে একজনকে তার কাবুতে নিতে পারে।

বিষয়টা একজন সত্যিকারের মুসলমানের দৃঢ় বিশ্বাসের সাথে কতই না চমৎকার মিল! এই বিশ্বাসই একজন সত্যিকারের মুসলমানের হওয়া চাই। এই শিক্ষা দেয়ার জন্যই নবী রাসুলদের আগমন। এই শিক্ষা দেয়ার জন্য কোরআন, হাদিস ও যুগে যুগে আসমানী কিতাব ও সহিফা। দুনিয়া সৃষ্টির পেছনে যে বিরাট উদ্দেশ্য একমাত্র সর্বক্ষমতার মালিকের পরিচয় পাওয়া, সেটি করোনাভাইরাস চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে। আর সেই শিক্ষার নাম হচ্ছে তাওহীদ তথা আল্লাহ তা’আলার একত্ববাদ।

কোরআনে পাক ও হাদিসে পাক এই তাওহীদের শিক্ষা দিতে বার বার স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে-
تَبَارَكَ الَّذِي بِيَدِهِ الْمُلْكُ وَهُوَ عَلَى كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ
“সেই মহান সত্ত্বা অতীব বরকতময়, যার হাতে রয়েছে সকল রাজত্ব। আর তিনি প্রতিটি বিষয়ের উপর ক্ষমতাবান।” (আল কোরআন ৬৭/১)

আল্লাহপাক ঘোষণা করেন-
قُلْ مَنْ بِيَدِهِ مَلَكُوتُ كُلِّ شَيْءٍ وَهُوَ يُجِيرُ وَلَا يُجَارُ عَلَيْهِ
“হে নবী! আপনি জিজ্ঞাসা করুন, সব কিছুর কর্তৃত্ব কার হাতে? যিনি আশ্রয় দান করেন এবং যার উপর কোন আশ্রয় দাতা নেই।” (আল কোরআন ২৩/৮৮)

قُلْ لَا أَمْلِكُ لِنَفْسِي ضَرًّا وَلَا نَفْعًا إِلَّا مَا شَاءَ اللَّهُ ۗ لِكُلِّ أُمَّةٍ أَجَلٌ ۚ إِذَا جَاءَ أَجَلُهُمْ فَلَا يَسْتَأْخِرُونَ سَاعَةً ۖ وَلَا يَسْتَقْدِمُونَ
তুমি বল, আমি আমার নিজের ক্ষতি কিংবা লাভেরও মালিক নই, কিন্তু আল্লাহ যা ইচ্ছা করেন। প্রত্যেক সম্প্রদায়ের জন্যই একেকটি ওয়াদা রয়েছে, যখন তাদের সে ওয়াদা এসে পৌঁছে যাবে, তখন না একদন্ড পেছনে সরতে পারবে, না সামনে ফসকাতে পারবে,। (আল কোরআন ১০/৪৯)

وَاتَّخَذُوا مِنْ دُونِهِ آلِهَةً لَا يَخْلُقُونَ شَيْئًا وَهُمْ يُخْلَقُونَ وَلَا يَمْلِكُونَ لِأَنْفُسِهِمْ ضَرًّا وَلَا نَفْعًا وَلَا يَمْلِكُونَ مَوْتًا وَلَا حَيَاةً وَلَا نُشُورًا
তারা তাঁর পরিবর্তে কত উপাস্য গ্রহণ করেছে, যারা কিছুই সৃষ্টি করে না এবং তারা নিজেরাই সৃষ্ট এবং নিজেদের ভালও করতে পারে না, মন্দও করতে পারে না এবং জীবন, মরণ ও পুনরুজ্জীবনেরও তারা মালিক নয়। (আল কোরআন ২৫/৩)

এই তাওহীদ বা একত্ববাদ যাতে দৃঢ়ভাবে দিলে বসে যায়, তার জন্য জন্মলগ্ন থেকে শিক্ষা দিতে ভূমিষ্ট হবার পর পর আজান ও এক্বামত ইহতেমাম করা। শিশু যখন কথা বলা আরম্ভ করবে তখন থেকেই আল্লাহর তাওহীদ শিক্ষা দিতে হবে। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইবন আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহুকে লক্ষ্য করে বলেন,
« ﻳَﺎ ﻏُﻠَﺎﻡُ ﺇِﻧِّﻲ ﺃُﻋَﻠِّﻤُﻚَ ﻛَﻠِﻤَﺎﺕٍ، ﺍﺣْﻔَﻆِ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻳَﺤْﻔَﻈْﻚَ، ﺍﺣْﻔَﻆِ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﺗَﺠِﺪْﻩُ ﺗُﺠَﺎﻫَﻚَ، ﺇِﺫَﺍ ﺳَﺄَﻟْﺖَ ﻓَﺎﺳْﺄَﻝِ ﺍﻟﻠَّﻪَ، ﻭَﺇِﺫَﺍ ﺍﺳْﺘَﻌَﻨْﺖَ ﻓَﺎﺳْﺘَﻌِﻦْ ﺑِﺎﻟﻠَّﻪِ، ﻭَﺍﻋْﻠَﻢْ ﺃَﻥَّ ﺍﻷُﻣَّﺔَ ﻟَﻮْ ﺍﺟْﺘَﻤَﻌَﺖْ ﻋَﻠَﻰ ﺃَﻥْ ﻳَﻨْﻔَﻌُﻮﻙَ ﺑِﺸَﻲْﺀٍ ﻟَﻢْ ﻳَﻨْﻔَﻌُﻮﻙَ ﺇِﻟَّﺎ ﺑِﺸَﻲْﺀٍ ﻗَﺪْ ﻛَﺘَﺒَﻪُ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻟَﻚَ، ﻭَﻟَﻮْ ﺍﺟْﺘَﻤَﻌُﻮﺍ ﻋَﻠَﻰ ﺃَﻥْ ﻳَﻀُﺮُّﻭﻙَ ﺑِﺸَﻲْﺀٍ ﻟَﻢْ ﻳَﻀُﺮُّﻭﻙَ ﺇِﻟَّﺎ ﺑِﺸَﻲْﺀٍ ﻗَﺪْ ﻛَﺘَﺒَﻪُ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻋَﻠَﻴْﻚَ، ﺭُﻓِﻌَﺖِ ﺍﻷَﻗْﻠَﺎﻡُ ﻭَﺟَﻔَّﺖْ ﺍﻟﺼُّﺤُﻒُ »
‘হে বৎস! আমি তোমাকে কয়েকটি বাক্য শিখাতে চাই। তুমি আল্লাহর অধিকারের হেফাযত করবে, আল্লাহও তোমার হেফাযত করবেন। তুমি আল্লাহর অধিকারের হেফাযত করবে, তুমি তাঁকে সর্বদা সামনে পাবে। যখন কোন কিছু চাইবে তখন আল্লাহর কাছেই চাইবে। আর যখন সহযোগিতা চাইবে তখন আল্লাহর কাছেই চাইবে। আর জেনে রাখ! যদি পুরো জাতি যদি তোমার কোন উপকার করার জন্য একতাবদ্ধ হয়, তবে তোমার কোন উপকার করতে সমর্থ হবে না, শুধু ততটুকুই করতে পারবে যতটুকু আল্লাহ তোমার জন্য লিখে রেখেছেন। আর যদি পুরো জাতি যদি তোমার কোন ক্ষতি করার জন্য একতাবদ্ধ হয়, তবে তোমার কোন ক্ষতি করতে সমর্থ হবে না, শুধু ততটুকুই করতে পারবে যতটুকু আল্লাহ তোমার জন্য লিখে রেখেছেন। কলমের লিখা শেষ হয়েছে এবং কাগজসমূহ শুকিয়ে গেছে। [তিরমিযী: ২৫১৬]

আজকে এই একটি ভাইরাস আমাদের অনেকের আক্বিদা নষ্টের কারণ হয়ে যাচ্ছে। অথচ এর সলিউশন বহু বছর আগ থেকে আমাদের সামনে বিদ্যমান। তাই আসুন! আমরা নিজের দিলের ভিতর সর্বসক্তিমান আল্লাহর উপর সহি আক্বিদা প্রতিষ্ঠা করি। এতে উভয় জাহানেই মঙ্গল।

বার্সেলোনা, স্পেন থেকে…