গণপরিবহনে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করে দেশব্যাপী লকডাউন শিথিল করছে স্পেন

প্রকাশিত: ৫:৫২ অপরাহ্ণ, মে ৩, ২০২০

গণপরিবহনে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করে দেশব্যাপী লকডাউন শিথিল করছে স্পেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে দেশে দেশে বাধ্যতামূলক হচ্ছে মাস্ক। সে তালিকায় যুক্ত হতে যাচ্ছে স্পেনও। আগামীকাল সোমবার থেকে দেশটিতে গণপরিবহনে অবস্থানকালে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হতে যাচ্ছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সাঞ্চেজ রোববার বলেছেন, সরকার দেশজুড়ে, বিশেষ করে পরিবহণ স্টেশনগুলোতে ৬০ লাখ মাস্ক বিতরণ করবে। এছাড়া, স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে আরো ৭০ লাখ মাস্ক দেয়া হবে। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।
খবরে বলা হয়, সাম্প্রতিক সময়ে করোনা সংক্রমণ কমছে স্পেনে। ধীরে ধীরে দেশব্যাপী জারি লকডাউন শিথিল করছে সরকার।

গত সপ্তাহে শিশুদের বাইরে বের হওয়ার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। গতকাল শনিবার লকডাউন জারির পর প্রথমবারের মতো প্রাপ্তবয়স্কদের বাইর শরীরচর্চার অনুমোদন দেয়া হয়েছে।
করোনায় ইউরোপের মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি হয়েছে ইতালিতে। জন হপকিন্স অনুসারে, সেখানে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন অন্তত ২৮ হাজার ৭১০ জন। এছাড়া, যুক্তরাজ্যে মারা গেছেন ২৮ হাজার ১৩১ জন। ২৫ হাজার ১০০ মৃত্যু নিয়ে ইউরোপের মধ্যে তৃতীয় স্থানে রয়েছে স্পেন। সাম্প্রতিক দিনগুলোয় ইতালি, ফ্রান্স ও স্পেনে মৃত্যুর হার কমছে। অবশ্য শনিবার ইতালিতে গত কয়েকদিনের ধারা ভেঙে মারা গেছেন ৪৭৪ জন।
সাঞ্চেজ বলেন, এতদিন ধরে লকডাউনে করা ত্যাগের ফল পেতে যাচ্ছে স্পেন। তিনি আরো জানান, করোনা মহামারিতে হওয়া অর্থনৈতিক ক্ষতি সামাল দিতে আঞ্চলিক কর্তৃপক্ষকে ১ হাজার ৭৬০ কোটি ডলার প্রণোদনা দেবে সরকার।
প্রসঙ্গত, গত ১৪ই মার্চ থেকে স্পেনে দেশব্যাপি লকডাউন জারি রয়েছে। কেবল কাজে যেতে, ওষুধ ও খাবার কিনতে জনগণের ঘরের বাইরে বের হওয়ার অনুমোদন ছিল। বন্ধ ছিল ওষুধ ও খাবারের দোকান বাদে বাকি সকল অপ্রয়োজনীয় ব্যবসা। সম্প্রতি ওই লকডাউন শিথিল করা হচ্ছে। দুই সপ্তাহ আগে খুলে দেয়া হয়েছে দোকানপাট। সবধরণের দোকান খুলে দেয়ার অনুমোদন দেয়া হয়েছে।
এদিকে, লকডাউন শিথিল হচ্ছে ইউরোপের অন্যান্য দেশেও। হাঙ্গেরি অন্যান্য দেশের সঙ্গে ব্যবসা চালু করেছে। সোমবার থেকে জার্মানিতে গীর্জা, জাদুঘর ও খেলার স্থান খুলে দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। আইরিশ প্রধানমন্ত্রী লিও ভারাদকার তার দেশের অর্থনীতি সচলের পরিকল্পনা প্রকাশ করেছেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ