বৃটেনে করোনা ভাইরাস (কভিড-১৯) সংকট ২০২১ সাল পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে

প্রকাশিত: ৭:২১ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৭, ২০২০

বৃটেনে করোনা ভাইরাস (কভিড-১৯) সংকট ২০২১ সাল পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে

হ্যালো বাংলাদেশ নিউজ ডেস্কঃ

বৃটেনে করোনা ভাইরাস (কভিড-১৯) সংকট ২০২১ সাল পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে। এতে আক্রান্ত হতে পারে বৃটেনের ৮০ শতাংশ জনগণ। এর মধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হতে পারে মোট জনসংখ্যার ১৫ শতাংশ বা ৮০ লাখ মানুষকে। দেশটির সরকারি স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা এনএইচএস এর এক গোপন নথির বরাত দিয়ে এমন তথ্য জানিয়েছে দ্য গার্ডিয়ান। রোববার এনএইচএস কর্মকর্তাদের এক গোপন বৈঠকে এ তথ্য প্রকাশ করে পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড (পিএইচই)।

দ্য গার্ডিয়ান জানায়, বৃটেনে প্রতিদিন বাড়ছে করোনায় মৃতের সংখ্যা। রোববার একদিনে মারা গেছেন ১৪ জন। এতে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৫ জনে। এছাড়া আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ১৪০০ মানুষ।

রোববার প্রকাশিত গোপন নথিটিতে বৃটেনে ভাইরাস মোকাবিলাকারী স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা প্রথমবারের মতো স্বীকার করেছেন যে, ভাইরাসটি আরো ১২ মাস স্থায়ী হতে পারে। ততদিনে আক্রান্ত হতে পারে ৮০ শতাংশ। সরকারের প্রধান মেডিক্যাল উপদেষ্টা অধ্যাপক ক্রিস হুইটি এর আগে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে বলে সতর্ক করেছিলেন। তবে রোববারের ব্রিফিংয়ে বলা হয়েছে, ভাইরাসটিতে প্রতি পাঁচ জনের চার জনই আক্রান্ত হতে পারে।

নথিটিতে বলা হয়েছে, আগামী ১২ মাসে বৃটেনের ৮০ শতাংশ জনগণ করোনায় আক্রান্ত হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এদের ন্মধ্যে ১৫ শতাংশকে হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে হতে পারে। পিএইচই’র জরুরি প্রস্তুতি ও প্রতিক্রিয়া দল সাম্প্রতিক দিনগুলোয় এ নথিটি তৈরি করেছে। এর অনুমোদন দিয়েছেন সংস্থাটির পক্ষ থেকে করোনা মোকাবিলায় নেতৃত্বদানকারী চিকিৎসক ডা. সুজান হপকিনস।

নথি অনুসারে, বৃটেনে যদি করোনায় মৃত্যুর হার ১ শতাংশও হয়, তাহলে সেখানে আনুমানিক মারা যেতে পারেন ৫ লাখের বেশি মানুষ।