ব্যাঙ্গচিত্র করা এবং আক্রমনাত্মক কার্যক্রম সন্ত্রাসবাদ ছাড়া আর কিছুই নয়- শায়খ সুদাইস

প্রকাশিত: ১২:৩২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০২০

ব্যাঙ্গচিত্র করা এবং আক্রমনাত্মক কার্যক্রম সন্ত্রাসবাদ ছাড়া আর কিছুই নয়- শায়খ সুদাইস

গতকাল ৩০শে অক্টোবর শায়খ সুদাইস হাফিজাহুল্লাহ কর্তৃক প্রদত্ত জুম্মার খুতবার কিছু অংশের অনুবাদ। তিনি বলেন-

আমরা ১.৮ বিলিয়ন মুসলমানের পক্ষ থেকে বলছি। আমরা আল্লাহর নবী-রাসুলগণকে নিয়ে যেকোন প্রকার অবজ্ঞাপূর্ণ আচরণের কঠোর ভাষায় তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছি।

বিশেষত মানুষের পথনির্দেশক, দয়ার ও করুণার নবী, আমাদের নেতা ও প্রিয় নবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের প্রতি এমন আচরণের (আল্লাহ তা’আলা যেন প্রিয় নবী (সা) কে আরও প্রশংসিত ও আরও সুরক্ষিত করেন) ।

অবমাননাকর ছবি আঁকানো, ব্যাঙ্গকরা এবং আক্রমনাত্মক র্কার্যক্রম সন্ত্রাসবাদ ছাড়া আর কিছুই নয়।পাশাপাশি এমন আচরণ চরমপন্থার অংশ। এ ধরণের কাজ মানুষকে আরও বেশি ঘৃণা ও গোঁড়ামির দিকে ধাবিত করে।

মানুষের ধর্মীয় নেতাদের নিয়ে উপহাস ও বিদ্রূপ করা এবং যেবিষয়গুলো মানুষ পবিত্র বলে মনে করে ও শ্রদ্ধা করে এগুলো নিয়ে মস্কারী করার নাম মত প্রকাশের স্বাধীনতা বা বাকস্বাধীনতা নয়। বরং এই জাতীয় আচরণ অনৈতিকতা এ অশালীন বলে বিবেচিত যেটা অগ্রহণযোগ্য।

অন্যদের অনুভূতির প্রতি যথাযথ শ্রদ্ধা বজায় রেখে মানবিক মূল্যবোধের বিচারে বাকস্বাধীনতা প্রকাশ করা আবশ্যক। একজনের মত প্রকাশ যখন এই মানদন্ডের বাইরে চলে যায়, তখন এটি অনৈতিকতা ও প্রকাশ্যে কাউকে অপমান করার মাধ্যম হয়ে উঠে।

এ ধরনের ব্যবহার চরমপন্থীদের সমর্থন দেয়ার শামিল। যারা শালীন ও শান্ত সমাজের মানবিক মূল্যবোধকে বিদ্বেষপূর্ণ করে এবং ঘোলাটে পরিবেশ সৃষ্টি করতে তৎপর।

সর্বশেষ, ইসলাম এই সমস্ত নেতিবাচক বিষয়গুলো থেকে পবিত্র, মুক্ত। এবং যে কোনও ধরণের সন্ত্রাসবাদের লেবেলযুক্ত হওয়া থেকেও মুক্ত ও পবিত্র। ইসলাম হচ্ছে সহনশীল, শান্তি ও সম্প্রীতির ধর্ম।

ইসলাম সন্ত্রাসবাদ, চরমপন্থা, ধ্বংস, বিদ্রূপ, অবমাননা বা মহান আল্লাহ তা’আলার প্রেরিত কোন রাসূলকে প্রত্যাখ্যান করার শিক্ষা দেয় না।

আব্দুল কাদির আল মাহদি
বার্সেলোনা, স্পেন থেকে