ব্যবহৃত-পুরাতন স্মার্টফোন ব্যবহার ও ক্রয় করে আর্থিক ক্ষতির পাশাপাশি আপনার বিপদ ঢেকে আনছেন না তো!

প্রকাশিত: ১২:২০ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৩, ২০২০

ব্যবহৃত-পুরাতন স্মার্টফোন ব্যবহার ও ক্রয় করে আর্থিক ক্ষতির পাশাপাশি আপনার বিপদ ঢেকে আনছেন না তো!

এখন মোবাইল বলতেই বুজায় স্মার্টফোন। স্মার্টফোন আমাদের জীবনের একটি অপরিহার্য অংশ হয়ে উঠেছে। এখন একটি স্মার্টফোন হাতের কাছে না থাকলে যেন আমাদের একটি মুহুর্তই চলেনা। কেন হবে না? এখন যে স্মার্টফোন দিয়ে নিজের যোগাযোগের পাশাপাশি পেশাদার অনেক কাজই আমরা করে ফেলছি হাতের এই ফোনটির মাধ্যমে, এতে করে আমাদের অনেক সময়ও বেচে যাচ্ছে। কিন্তু এই স্মার্টফোনটাই যদি আপনার কাছে বিরক্তিকর হয়ে উঠে! আপনার প্রয়োজনীয় কাজ করতে না পারেন তাহলে? শুধু মাত্র একটা অতিরিক্ত ওজন নিয়ে চলা ছাড়া আর কোন ফায়দা নেই। আর এটা হতে পারে একটিই কারনে তাহল যদি আপনি কারো ব্যবহৃত স্মার্টফোন ক্রয় করেন। কারন একটি স্মার্টফোন দুইটি পর্যায়ের সমন্বয়ে কাজ করে একটি হল ফোনের হার্ডওয়ার আর অপরটি হল “সফটওয়ার যেটাকে আমরা এন্ড্রয়েড বলে থাকি” এই দুইটি বিভাগ প্রতিনিয়তই আপডেট হচ্ছে। যা আপনার ব্যবহৃত পুরাতন স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে আপগ্রেশন সম্ভব না। সম্ভব হলেও তা বাই ফোর্স আর বাই ফোর্সের ক্ষেত্রে প্রায় সময় আপগ্রেশন পোগ্রাম মিসিং হয় যার ধরুন আপনার ফোনটি আরো খারাপ ও এক পর্যায়ে অচল হয়ে যেতে পারে। এছাড়াও ফোনের হার্ডওয়ারের গুরুত্বপুর্ন অংশ যেমন- মাদারবোর্ড, প্রসেসর, রেম। ফোনের সফটওয়ার ভার্সন এন্ড্রয়েড/আই.ও.এস এবং এর সিকিউরিটি প্রতিনিয়ত আপডেট হচ্ছে যা বর্তমান সময়ের ফোনে অটোমেটিক আপগ্রেশন করা সম্ভব কিন্তু পুরাতন ফোনের ক্ষেত্রে সম্ভব ছিল না বা থাকলে এইগুলো নিজে নিজে আপগ্রেশন করা যেত না। তাই আপনার কষ্টে অর্জিত টাকা দিয়ে পুরাতন স্মার্টফোন ক্রয় করবেন না, বাজেটে সম্ভব না হলে কম দামের মধ্যেও ভাল ব্রান্ডের ফোন কিনুন আপনি যে কাজটি দামি ফোন দিয়ে করতে চান সেটা আপনার কমদামের স্মার্টফোন দিয়েও করতে পারবেন। আর যদি মনে করেন আপনার পুরাতন স্মার্টফোনটির উপরোক্ত লিখার মধ্যে থেকে কোন সমস্যা নেই তাহলে একটা বিষয় খেয়াল রাখবেন আপনার ব্যাক্তিগত নিরাপত্তা! কারন আপনার পুর্বে ব্যবহৃত ফোনের মালিক তার ফোনে অবশ্যই তার নিজস্ব ইমেইল/আইক্লাউড একাউন্ট ব্যবহার করেছে। আর সে না জেনে না বুজে অনেক সাইটে তার একাউন্ট ব্যবহার করে এক্সেস করেছে। আর এই এক্সেসকৃত সাইট যদি হয় কোন খারাপ লোকের অথবা কোন হ্যাকারের! আপনার ফোনের তথ্যগুলো অবশ্যই তার কাছে সংরক্ষিত আছে অথবা সে ফোনের তথ্য বের করার একটা সুযোগ পেয়ে গেল। অথবা পুর্বের ফোনের মালিক এই ফোনের মাধ্যমে যদি কোন মারাত্নক অপরাধ করে থাকে তাহলে নিঃসন্দেহে আজ অথবা কাল এই ফোনের কারনে আপনি ফেসে যেতে পারেন। অনেকেইতো এমনও হচ্ছে পুর্বের ব্যবহৃত ফোনের মালিকের ইমেইল/আইক্লাউড একাউন্ট রিমোভ না করে সেটাই ব্যবহার করে যাচ্ছেন এক্ষেত্রেতো আর কোন কথাই নেই আপনি সরাসরি আপনার নিরাপত্তা অন্যের হাতে তুলে দিচ্ছেন। একটু টেকনিক্যাল ধারনা থাকলেই আপনার সম্পুর্ন তথ্য চুরি করা বা আপনাকে ব্ল্যাকমেইল করা বা আপনাকে বিপদে ফেলা কোন ব্যাপারই না। তাই এখন থেকে সাবধান হোন এবং ব্যাবহৃত স্মার্টফোন ব্যবহার থেকে সর্তক থাকুন।

লেখক:
রেজাউল করিম সুমন