ইসরাইলি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে স্পেনের বার্সেলোনায় বিশাল সমাবেশ

প্রকাশিত: ১:১২ পূর্বাহ্ণ, মে ১৯, ২০২১

ইসরাইলি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে স্পেনের বার্সেলোনায় বিশাল সমাবেশ

সাদেক আহমদ শিকদার:গাজায় দখলদার ইসরাইলি বাহিনীর বর্বর আগ্রাসন ও ফিলিস্তিনি নিরীহ জনগণকে নির্বিচারে হত্যার প্রতিবাদে ইউরোপের দেশ স্পেনের বার্সেলোনায় বিশাল সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশটির পর্যটন নগরী বার্সেলোনায় কয়েকটি মুসলিম সংগঠনের নেতাকর্মীসহ হাজার হাজার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। এর মধ্যে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশী নাগরিকও ছিলেন।

সমাবেশের জন্য নির্ধারিত সময় বিকেল ৭টার অনেক আগেই  ছিল লোকে লোকারণ্য। তাদের হাতে ছিল বিভিন্ন ধরনের প্ল্যাকার্ড, ব্যানার ও ফ্যাস্টুন। এতে ফিলিস্তিনি জনগণের প্রতি সহানুভূতি ও তাদের পাশে থাকার বার্তা ছিল স্পষ্ট। সমাবেশে উপস্থিত বাংলাদেশী মুসলিম কমিউনিটির শহিদ আহমদ বলেন, গাজায় মানবাধিকার ভুলণ্ঠিত হচ্ছে। দখলদার ইসরাইলি বাহিনী একের পর এক বিমান ও বোমা হামলা চালাচ্ছে। অথচ বিশ্ব মোড়লেরা নিরব। তিনি তাদের ভূমিকার প্রতি ধিক্কার জানিয়ে অবিলম্বে ইসরাইলি আগ্রাসন বন্ধের আহ্বান জানান।

বাংলাদেশের আরেক নাগরিক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমাদের সকলের নৈতিক ও ঈমানী দায়িত্ব হচ্ছে, এই আগ্রাসনের প্রতিবাদ করা।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, ইসরাইল প্রতিদিনই অত্যাধুনিক মিসাইল নিক্ষেপ করে ফিলিস্তিনি বাড়িঘর গুড়িয়ে দিচ্ছে। তিনি বলেন, ইসরাইল ইতোমধ্যে গাজা উপত্যকায় অসংখ্য ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে, যার বেশিরভাগই শিশু। বিশ্ব গনমাধ্যম আলজাজিরা ও এপি কার্যালয়গুলোকে বোমা মেরে ধ্বংস করা হয়েছে। বিশ্বের সামনে গাজার আসল চিত্র যাতে প্রকাশ না পায় এর সব কিছুই করছে ইসরাইল। এ ধরনের সংঘাত পৃথিবীতে নজিরবিহীন।

বক্তারা আরো বলেন, এটি একটি অসম লড়াই। পাথরের বিপক্ষে মিসাইল। ইসরাইলি অত্যাধুনিক অ্যাডভান্সড টেকনোলজির জঙ্গী বিমানের বিপক্ষে ফিলিস্তিনিদের রকেট। ফিলিস্তিনিদের ভূমি দখল করে ইসরাইল রাষ্ট্রের জন্ম হয়েছে। ইসরাইল একটি দখলদারী রাষ্ট্র, এটা কখনোই বৈধ হতে পারে না। ইসরাইল কোনো আন্তর্জাতিক চুক্তি মানে না। তারা মানে না কোনো সীমান্ত চুক্তিও। অবৈধ ইসরাইল গত ৭০ বছর ধরে ফিলিস্তিনিদের বাড়িঘর গুড়িয়ে দিয়ে অবৈধ বসতি স্থাপন করেই যাচ্ছে।

ইসরাইলি রাষ্ট্রের দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে। তাদের আগ্রাসন ও জবরদখলের বিরুদ্ধে।

ইসরাইল কখনোই সভ্য রাষ্ট্র হতে পারে না বলেও মন্তব্য করেন ।

সমাবেশে বার্সেলোনায় বসবাসরত বিপুল সংখ্যক ফিলিস্তিনি নাগরিক অংশগ্রহণ করেন। তাদের মুহূর্মুহূ শ্লোগানে সমাবেশ প্রানবন্ত হয়ে উঠে ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

faster