তীব্র গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

প্রকাশিত: ৭:১২ অপরাহ্ণ, মে ২৪, ২০২১

তীব্র গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

নিউজ ডেস্কঃসিলেটজুড়ে কয়েক দিন ধরে চলমান মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ অব্যাহত রয়েছে। বিগত দু’দিদের তুলনায় আজ সোমবার তাপমাত্রা কিছুটা কমলেও তপ্ত রোদে অতিষ্ঠ জীবন। রোদে পুড়ছে গোটা সিলেট। মে মাস জুড়ে সিলেটে বৃষ্টি হওয়ার কথা থাকলেও এমন অবস্থায় বৃষ্টি নিয়ে কোনো সুখবর দিতে পারেনি আবহাওয়া অধিদপ্তর।আবহাওয়া অধিদপ্তর সিলেট কার্যালয়ের সিনিয়র আবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী বলেন, গ্রীষ্মে তাপমাত্রা এমনিতেই বেশিই থাকে। তবে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ের কারণে এই গরমের উৎপত্তিটা বেশি হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়ের কারণে সব জায়গার জলীয়বাষ্প টেনে নিয়ে যাচ্ছে। এজন্য বেশি গরম অনুভূত হচ্ছে এবং তাপমাত্রাও বাড়ছে।সোমবার (২৪ মে) বেলা ১২টা পর্যন্ত সিলেটে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়ছে। তবে আজ সোমবার গতকালের মতো তাপমাত্রা রেকর্ড না হলেও ৩৭ ডিগ্রিতে যেয়ে দাঁড়াতে পারে বলে জানান এ আবহাওয়াবিদ।তিনি বলেন, সাধারণত এই মাসে হালকা বৃষ্টি থাকে যার জন্য তাপমাত্রা থাকে। তবে এবার বৃষ্টিপাত অনেক কম হয়েছে। তাই তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের মুভমেন্টের উপর নির্ভর করছে বৃষ্টি। ২৬ মে পরে হালকা বৃষ্টি এবং ২৯ বা ৩০ মে নাগাদ ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের গতিবেগ বৃদ্ধি পেলে বৃষ্টির সম্ভাব্য তারিখ আরও এগিয়ে যাবে।এদিকে গতকাল রোববার সিলেটের তাপমাত্রা মে মাসের ১৫ বছরের রেকর্ড বলে জানিয়ে তিনি বলেছেন, গত এপ্রিল মাসে ৩৭ দশমিক ৫ পর্যন্ত তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল। আজ ৩৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। এর আগে ২০০৬ সালে মে মাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছিলো ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

faster